বাংলাদেশ গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজ
স্থাপিত : ১৯৯৬
Clothing & Textile

Clothing & Textile

Clothing & Textile

বস্ত্ররিচ্ছদ ও বয়নশিল্প : মৌলিক চাহিদার মধ্যে খাদ্যের পরেই বস্ত্রের স্থান। সভ্য সমাজে জন্ম লগ্ন থেকে মৃত্যুর পর পর্যন্ত মানুষর বস্ত্রের প্রয়োজন অপরিহার্য। বাংলাদেশের অর্থনীতিতে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের প্রথম ও প্রধান খাত বস্ত্রশিল্প। মোট আয়ের শতকরা ৮২ ভাগই আসে বস্ত্রশিল্প থেকে। বিশ্বে পোশাক রপ্তানিতে বাংলাদেশের অবস্থান দ্বিতীয়। পোশাকশিল্পে প্রায় ৪৫ লাখ শ্রমিক কর্মরত। যার ৮০ ভাগ কর্মীই হচ্ছে নারী। এই পোশাকশিল্পের মাধ্যমে আমাদের দেশের নারীদের অর্থনৈতিক স্বাবলম্বিতা নারীর ক্ষমতায়ন বেড়েছে। এই কোর্সের অর্ন্তভূক্ত বিষয় সমুহের মাধ্যমে লব্ধ জ্ঞান দ্বারা ছাত্রীরা বস্ত্রশিল্প সম্প্রসারনে বিশেষ ভূমিকা রাখবে। এই কোর্সের পঠিত বিষয় সমূহ 

প্রিন্সিপল অব ফ্যামিলিক্লদিং, ট্রেক্সটাইল র’ম্যাটেরিয়ালস, ইয়ার্ন ম্যানুফ্যাকচারিং টেকনোলজি, ফেব্রিক ম্যানুফ্যাকচারিং টেকনোলজি, গার্মেন্টস ম্যানুফ্যাকচারিং টেকনোলজি, বেসিক ডিজাইন কনসেপ্ট, হিস্টোরিক কস্টিউম এন্ড টেক্সটাইলস, ফেব্রিক স্ট্রাকচার এন্ড ডিজাইন, ফ্যাশন ডিজাইনিং, মার্চেন্ডাইজিং, ট্রেক্সটাইল টেস্টিং এবং কোয়ালিটি কন্ট্রোল, টেক্সটাইল ডাইং, প্রিন্টিং এন্ড ফিনিশিং, অ্যাডভান্স ফ্যাশন ডিজাইনিং, ইন্ডাস্ট্রিয়াল ম্যানেজমেন্ট, টেক্সটাইল এন্ড ফ্যাশন মাকের্টিং, কনজিউমার ইকোনোমিক্স, হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট, স্মল বিজনেস ম্যানেজমেন্ট ইত্যাদি। অর্থাৎ তুলার আঁশ থেকে সুতা, সুতা থেকে কাপড়, কাপড় থেকে ফ্যাশনেবল গার্মেন্টস তৈরীর সম্পূর্ণ প্রক্রিয়া তত্বীয় এবং হাতে কলমে জ্ঞান অর্জনের মাধ্যমে ফ্যাশন ডিজাইনার এবং উদ্দ্যোক্তা সৃষ্টিতে বয়ন শিল্পের জোরালো ভূমিকা রয়েছে। এছাড়াও টেক্সাটাইল টেষ্টিং ও গবেষনার ক্ষেত্রে রয়েছে এ বিভাগের অবদান। বস্ত্র পরিচ্ছদ ও বয়ন শিল্প বিভাগের বিষয় ভিক্তিক জ্ঞান অর্জনের মাধ্যমে কর্মক্ষেত্রে অর্থাৎ বস্ত্র শিল্পের মান উন্নয়নে নিজেকে যোগ্য করে তুলে দেশকে সমৃদ্ধির দিকে এগিয়ে নিতে সাহায্য করবে।

Total Views : 707